খেলাধুলা সংবাদ

এই কোচ চলে গেলে আমি মিলাদ পড়াব, আমার ছেলেটাকে প্রায়….

ক্রিকেটে বাংলাদেশের নিকট অতীতের সাফল্যের পেছনে চন্ডিকা হাথুরসিংহের অবদান অস্বীকার করবেন না কেউ। কিন্তু সাফল্যের সঙ্গে তাকে নিয়ে বিতর্কও তার সঙ্গীঁ হয়েছে শুরু থেকে। বাংলাদেশকে সাফল্য এনে দিয়ে সুযোগ-সুবিধাও ঢের নিয়েছেন তিনি।

টাইগারদের বদলে দিতে ভূমিকা রেখেছেন হাথুরু, বিশ্বমিডিয়ায় তা ফুলিয়ে-ফাঁপিয়ে এসেছে। তবে বাংলাদেশে তার শেষটা যে ভালো হবে না, এমনটা জানতেন অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী এই শ্রীলংকান কোচ। বিসিবির এক পরিচালক সম্প্রতি হাথুরুরসঙ্গে আলোচনা করেছেন।

রোববার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিসিবির ওই পরিচালক বলেন, ‘হাথুরু শুরুতেই বলেন, আমি জানতাম বাংলাদেশে আমাকে নিয়ে অনেক নেতিবাচক সমালোচনা হবে। খারাপ বিষয়গুলোই সামনে আসবে। এজন্য আমি প্রস্তুত ছিলাম। ’

বিসিবির ওই পরিচালক বলেন, ‘এই কোচের চাহিদা সম্পর্কে আমরা সবাই অবগত ছিলাম। তবে যে গরু দুধ দেয় তার লাথি খেলে সমস্যা কী? আমাদের দরকার ছিল সাফল্য। অন্য বিষয়গুলো নিয়ে এত সমালোচনা করে কী লাভ। সিনিয়র ক্রিকেটারদের আচরণে তিনি কষ্ট পেয়েছেন। তবে কী ধরনের আচরণ করা হয়েছে তার সঙ্গে, সেটা বলেননি তিনি। ’

ক্রিকেটবিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকবাজ শনিবার জানিয়েছে, শ্রীলংকার কোচ হওয়ার জন্য তাদের বোর্ডের সঙ্গে দুই দফা আলোচনায় বসেছেন হাথুরু। কোচের বেতন ধরা হয়েছে বছরে তিন লাখ ডলার।

মুমিনুল হক, নাসির হোসেনের মতো কয়েকজন ক্রিকেটারকে ছেঁটে ফেলতে চেয়েছিলেন হাথুরু। এক ক্রিকেটারের বাবা বলেছিলেন, ‘এই কোচ চলে গেলে আমি মিলাদ পড়াব। আমার ছেলেটাকে প্রায় খরচের খাতায় ফেলে দিয়েছেন তিনি। ’

কোচ চলে যাচ্ছেন। মিলাদ পড়িয়েছেন? কাল ওই ক্রিকেটারের বাবা বলেন, ‘আল্লাহ যা করেন ভালোর জন্যই করেন। এখন বাংলাদেশের ক্রিকেট আরও এগিয়ে যাবে। ’

বিসিবির সঙ্গে আলোচনায় বসার জন্য কয়েকবার বাংলাদেশে আসার তারিখ দিয়েও আসেননি হাথুরু। আলোচনা করতে তিনি বাংলাদেশে আসবেন কি না, এ নিয়ে সন্দিহান বিসিবি।

যুগান্তর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close