আন্তর্জাতিক

জেরুসালেম হবে ইসরাইলের কবরস্থান….

ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র কমান্ডার মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ আলী জাফারি বলেছেন, পবিত্র বায়তুল মুকাদ্দাস শহর (জেরুসালেম) ইহুদিবাদী ইসরাইলের জন্য কবরস্থানে পরিণত হবে।

রাজধানী তেহরানে আইআরজিসি’র সদস্যদের এ অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। জেনারেল জাফারি বলেন, পবিত্র আল-আকসা মসজিদ ধ্বংস করার লক্ষ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বায়তুল মুকাদ্দাস শহরকে ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ইসরাইল ও আমেরিকা ইতিহাসের সবচেয়ে বড় বোকামি করেছে এবং আল্লাহর রহমতে বায়তুল মুকাদ্দাস হবে অবৈধ ইসরাইলের কবরস্থান। ইসরাইল ও আমেরিকার এই ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় দ্রুত রুখে দাঁড়াতে মুসলিম বিশ্বের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, অন্যথায় দেরি হয়ে যাবে।

জেনারেল জাফারি বলেন, ‘আমরা জানতে পেরেছি যে, পর্দার আড়ালে কয়েকটি আরব দেশ বিশেষ করে সৌদি আরবের সঙ্গে পরামর্শ, সমঝোতা ও সমন্বয় করেই ট্রাম্প এ ঘোষণা দিয়েছেন এবং বিষয়টি নিয়ে কয়েক মাস আগে থেকে তারা পরামর্শ করছে।’

জেনারেল জাফারি বলেন, সৌদি আরব ও মার্কিন সরকারের এই ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হবে।

ট্রাম্পের ঘোষণা সম্পূর্ণভাবে উস্কানি: এরদোগান

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান বলেছেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পবিত্র বায়তুল মুকাদ্দাস শহরকে ইহুদিবাদী ইসরাইলের রাজধানী হিসেবে যে ঘোষণা দিয়েছেন তা সম্পূর্ণভাবে উসকানিমূলক পদক্ষেপ। ট্রাম্পের ওই ঘোষণার তিনি নিন্দা ও সমালোচনা করেন।

আল-কুদস হচ্ছে মুসলমানদের তৃতীয় পবিত্রতম স্থান এবং এ শহরের প্রতি তাদের গভীর শ্রদ্ধা রয়েছে।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, কোনো উসকানির মাধ্যমে দখলদারদের অজুহাত সৃষ্টির সুযোগ দেয়া মুসলমানদের উচিত হবে না। তিনি আরো বলেন, আগামী বুধবার ইস্তাম্বুল শহরে অনুষ্ঠেয় ইসলামি সহযোগিতা সংস্থা বা ওআইসি’র শীর্ষ সম্মেলন থেকে এমন বার্তা দেয়া হবে যার কারণে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করতে বাধ্য হবেন। ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে এরদোগান বলেন, দেরি হয়ে যাওয়ার আগেই তার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করা উচিত।

এদিকে, তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান শনিবার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরনের সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন। ফোনলাপে তারা বায়তুল মুকাদ্দাস ইস্যু নিয়ে আলোচনা করেন। এসময় দু নেতা একমত হয়েছেন যে, তারা ট্রাম্পকে তার সিদ্ধান্ত পরিবর্তনে রাজি করাতে একসঙ্গে কাজ করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close