বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

সড়কের ‘ডন’

নাম তার ডন। দেখতে যেমন, ভাবসাবেও। রয়েছে চাকচিক্য। চলেও বেশ। গতিময়।
কোনো আন্ডার ওয়ার্ল্ডের কুখ্যাত সন্ত্রাসীর কথা বলা হচ্ছে না। বলা হচ্ছে হিরো মোটর করপোরেশনের ‘ডন’ নামের বাইকটির কথা।
১০০ সিসির এই বাইকটিকে বেশ শক্তপোক্ত করে তৈরি করা হয়েছে। এতে ক্ল্যাসিক লুক রয়েছে। এজন্য দু চাকায় ব্যবহার করা হয়েছে স্পোক সমৃদ্ধ রিম। বলা যায় এটি একটি আদর্শ কমিউটার। কেননা, এটি জ্বালানি সাশ্রয়ী। ১ লিটার জ্বালানিতে বাইকটি প্রায় ৬০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে পারে।
ডনে রয়েছে ৪ স্ট্রোক সিলিন্ডারের এয়ার কুলড ইঞ্জিন। ডিসপ্লেসমেন্ট ৯৭.২ সিসি। যা ৫.৭৪ কিলোওয়াট @ ৭৫০০ আরপিএম শক্তি উৎপাদন করতে পারে। টর্ক ৮.০৪এনএম @ ৪৫০০ আরপিএম।
বাইকটির সর্বোচ্চ গতি ৮৫ কিলোমিটার।
বাইকটি কিক স্টার্টারের পাশাপাশি সেলফ স্টার্টারও রয়েছে। এতে ডিসি-ডিজিটাল সিডিআই ইগনিশন সিস্টেম আছে।
ওয়েট টাইপ মাল্টিপল ক্ল্যাচের বাইকটিতে ৪ টি গিয়ার সংযোজন করা হয়েছে।
এর সামনের চাকায় টেলিস্কোপিক হাইড্রোলিক শক অ্যাবসর্ভার রয়েছে। পেছনের চাকায় আছে সুইং আর্ম সমৃদ্ধ টু স্টেপ অ্যাডজাস্টেবল হাইড্রোলিক শক অ্যাবসর্ভার।
ডনের দু’চাকায়ই ড্রাম ব্রেক ব্যবহার করা হয়েছে। এর দুটো মাড গার্ড স্টিলের।
বাংলাদেশের বাজারে হিরো মোটরসাইকেলের পরিবেশক নিলয় মটরস লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটির বিক্রয় ও বিপণন বিভাগের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ মুহাম্মদ কারুল হাসান ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘জ্বালানি সাশ্রয়ী কমিউটার ডন। টেকসই একই বাইকটির দাম মাত্র ৯৫ হাজার টাকা। তবে বাইকটির স্টক শেষের পথে। ভারতেও এর উৎপাদন বন্ধ হয়েছে। তবে বাংলাদেশে হিরোর কয়েকটি শো রুমে এটি পাওয়া যাচ্ছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Read In English»
Close