বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

ইন্টারনেটের দাম কমানো আমার নৈতিক দায়িত্ব: মোস্তাফা জব্বার……

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন,‘দেশের সবাইকে ইন্টারনেট সেবার আওতায় আনার জন্য ইন্টারনেটের দাম কমানো আমার নৈতিক দায়িত্ব।

শুক্রবার সকালে রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ার মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্ত বিভাগের এগিয়ে যাওয়ার আরও চার বছর উপলক্ষে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল।

সংবাদ সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইসিটি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, সরকার ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথের দাম কমিয়েছে। সরকারের কাছ থেকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ব্যান্ড উইথ কিনে ডাটা হিসেবে বিক্রি করছে। এটা হতে দেয়া যাবে না। শহর ও গ্রামের সবাইকে একই দামে ইন্টারনেট দিতে হবে। দেশের প্রত্যেক নাগরিককে একই দামে ইন্টারনেট দেয়াটাও আমার নৈতিক দায়িত্ব।

মোস্তাফা জব্বার আরও বলেন, আমাদের ইন্টারনেটের মহাসড়ক তৈরি করতে হবে। দেশের সবাইকে শুধু ইন্টারনেট পরিষেবা সরবরাহ করলেই হবে না, দ্রুতগতির ইন্টারনেট দিতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, ব্যান্ডউইথ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানগুলো কম দামে ব্যান্ডউইথ নিয়ে গ্রাহকদের কাছে বেশি দামে ডাটা বিক্রি করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড প্রতি এমবিপিএস (মেগাবিট পার সেকেন্ড) ৬২৫ টাকায় বিক্রি করছে অথচ ক্রেতারা বেশি দামে ডাটা কিনছেন।

ইন্টারনেটে সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে ইন্টারনেটের দাম কমানোর আহ্বান জানিয়ে মোস্তাফা জব্বার বলেন, আপনারা ইন্টারনেট বিক্রির সময় মুনাফা করবেন কিন্তু খেয়াল রাখবেন গ্রাহকদের যেনো গলা কাটা না যায়।

ইন্টারনেটের শিশু-শিশুরদের নিরাপত্তার বিষয়টি উল্লেখ করে জব্বার বলেন, অভিভাবকরা শিশু-কিশোরদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে দিচ্ছেন না। এছাড়াও ইন্টারনেটের মাধ্যমে কেউ যাতে সহিংসতা ছড়াতে না পারে সেজন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে প্রধানমন্ত্রী আমাকে নির্দেশ দিয়েছেন। এক্ষেত্রে মিডিয়া সচেতনতা তৈরি করতে বড় ভূমিকা রাখতে পারে।

ব্যবসায়ীদের দেশে তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য উৎপাদন করতে উৎসাহ দিয়ে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী বলেন, আপনারা দেশে প্রযুক্তিপণ্যের উৎপাদন কারখানা খুলুন। সরকার আপনাদের প্রয়োজনীয় সহায়তা দেবে। হাইটেক পার্কে হার্ডওয়্যার উৎপাদন করলে ট্যাক্স হলিডে পাওয়া যাবে। দেশে একটি প্রতিষ্ঠান ইতোমধ্যে কম্পিউটারের মাদারবোর্ড উৎপাদন শুরু করেছে। পৃথিবীর অনেক উন্নত দেশও মাদারবোর্ড আমদানি করে থাকে।

মোস্তাফা জব্বার জানান, টেলিফোন শিল্প সংস্থা টেসিসের উৎপাদিত ল্যাপটপ এখন আগের চেয়ে উন্নত মানের। শিগগিরই টেলিটকের কল রেট কমানো হবে। প্রতিষ্ঠানটিতে সরকারি বিনিয়োগ বাড়ানোর পাশাপাশি এর গ্রাহক সংখ্যা বাড়ানোর জন্য উদ্যোগ নেয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক পেজেন্টেশনের মাধ্যমে বিগত চার বছরে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের অগ্রগতি এবং আগামীতে কী কী তথ্যপ্রযুক্তি বান্ধব নীতিমালা ও পদক্ষেপ গ্রহণ করবে সে সম্পর্কে তথ্যচিত্র তুলে ধরেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Read In English»
Close