অন্যান্য

নারায়ণগঞ্জে ভ্যানিটি ব্যাগে কনডম পেয়ে স্ত্রীকে হত্যা করল স্বামী

স্বামী রাজু আহমেদ দীর্ঘদিন ধরে সন্দেহ করতেন স্ত্রীর পরকীয়া নিয়ে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে মন মালিন্য চলছিল। এরপর রাজু আহমেদ স্ত্রীকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে হতযা করেন।/

স্ত্রীর ভ্যানিটি ব্যাগে কনডম। তাতে সন্দেহ হয় স্বামীর। এরপর ক্ষিপ্ত হয়ে স্ত্রীকে রুমানা আক্তারকে (২৪) খুন করেন স্বামী রাজু আহমেদ। নারায়ণগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে এমনই স্বীকারোক্তি দিয়ে নিজের দোষ স্বীকার করলেন স্বামী। ঘটনাটি ঘটে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায়।/

আজ বুধবার বিকালে কোর্ট পুলিশের এসআই হানিফ মিয়া জানান, মঙ্গলবার বিকালে নারায়ণগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আশেক ইমামের আদালত রাজু আহমেদের দেয়া জবানবন্দি রেকর্ড করেছেন। এরপর আদালত রাজু আহমেদকে জেলহাজতে প্রেরণ করেন।/

পুলিশের একটি সূত্র জানায়, হত্যার আগের দিন রুমানা আক্তারের ভ্যানিটি ব্যাগ তল্লাশি করে জন্মনিরোধক (কনডম) দেখতে পান রাজু।/

এনিয়ে তর্কে জড়িয়ে পড়েন স্বামী-স্ত্রী। এক পর্যায়ে রুমানা তার বাবার বাড়ি চলে যান। পরদিন রাতে ফের স্বামীর বাড়িতে আসলে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে আবারো তর্ক হয়। একপর্যায়ে রুমানাকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করেন রাজু।/

এরপর আশপাশের লোকজন ছুটে এসে রুমানাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
এই মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই আমিনুল ইসলাম জানান, পরকীয়া সন্দেহে রাজু তার স্ত্রী রুমানাকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছেন বলে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। এ ঘটনায় আরো তদন্ত চলছে।/

নিহত রুমানা আক্তার পশ্চিম দেলপাড়া এলাকার রবিউল মিয়ার মেয়ে এবং রাজু রাজধানী ঢাকার ধোলাইখাল এলাকার খালেক মিয়ার ছেলে।/

ফতুল্লায় ধোলাইখাল এলাকায় মোটর পার্টসের ব্যবসা করেন রাজু আহমেদ। রুমানা ও রাজুর বিয়ে হয় প্রায় আট বছর আগে । রাজু রুমানার ঘরে ৭ বছরের একটি সন্তান রয়েছে।/

গত সোমবার সকালে ফতুল্লার পশ্চিম দেলপাড়া এলাকার আহসান উল্লাহর ভাড়াটিয়া বাসায় রাজু আহমেদ তার স্ত্রীকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেন।/

সূত্রঃMaasranga24

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *