শুক্রবার, ২২ Jun ২০১৮, ০৯:২৯ পূর্বাহ্ন

স্কুল ছাত্রীর ওপর কু-নজর, অত:পর অপহরণ করে….

স্কুল ছাত্রীর ওপর কু-নজর, অত:পর অপহরণ করে….

সমাজে আতঙ্কের নাম ধর্ষণ। যার কবল থেকে শিশু থেকে বৃদ্ধ মহিলা কেউ রেহাই পায় না। দেশে বিদেশে প্রতিনিয়তই ঘটছে এই নেক্কারজনক কাজ। এমনকি কোন কিছুকেই ভয় করছে না এই অপরাধীরা বরং ক্রমেই তা বেড়ে চলেছে। এবার ঘটলো ভিন্ন ঘটনা ধর্ষণ করার জন্য ছাত্রীকে অপহরন । জানা গেছে

স্কুলে যাওয়ার পথে ছাত্রীর উপর কু নজর পরে তাদের। এর পর প্রতিদিন দেখে দেখে প্ল্যানিং এবং অবশেষে ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে ওই এলাকায় কাজ করতে আসা পাঁচ শ্রমিক যুবক

ঘটনাটি ভারতের জলপাইগুড়ি এলাকার আনন্দ পাড়া এলাকার। ঘটনার পর ওই শ্রমিকদের ধরে গনধোলাই দিয়ে পুলিশে দিয়েছে জনতা।জানাযায়, ঘণ্টা চারেক ধরে কিশোরীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। খোঁজ চলছিল সর্বত্র।

পরে এলাকারই একটি পরিত্যক্ত বাড়ির পিছন থেকে গোঙানির শব্দ শুনতে পেয়েই সূত্র খুঁজে পেলেন কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা। মুখের কাপড় খোলার পর সপ্তম শ্রেণির ওই ছাত্রী যা জানালেন তা শিউরে ওঠার মতো। এলাকায় লেবারের কাজ করতে আসা পাড়ার ‘দাদা’রাই নাকি অপহরণ করেছিল তাকে।

অপহরণের পর পরিত্যক্ত বাড়িতে লুকিয়ে রাখে। পরে ছাত্রীর পরিবার খোঁজ শুরু করে। স্থানীয়রাই কিশোরীকে উদ্ধার করে। সব জানার পর অভিযুক্তদের খোঁজে এলাকায় তল্লাশি চালায় স্থানীয়রাই। মূল অভিযুক্ত সৌরভ সহ পাঁচ জন ঠিকা শ্রমিকই ধরে পড়ে যায় স্থানীয়দের হাতে।

আটককৃত ওই শ্রমিকরা জানান, নন্দপাড়া এলাকায় কাজ করতে গিয়ে সপ্তম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে অপহরণ করার ছক কষেছিলাম আমরা। ওই ছাত্রীকে প্রতিদিনই স্কুলে যাতায়াতের পথে দেখি, তখন থেকেই প্ল্যন কষে সৌরভ ও তার দলবল। সোমবার ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে তারা।লক্ষ ছিলো ধর্ষণ করা । তবে সে চেষ্টা ব্যার্থ লম্পট যুবকরা।

সংবাদটি ফেজবুকে সেয়ার করুন

অামাদের সংবাদ সংক্রান্ত তর্থ্য

সকল প্রকাশিত/সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট ইত্যদি অনলাইনের নানা সূত্র থেকে সংগৃহীত। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ীনয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের এবং প্রকাশিত সূত্রের। অামাদের প্রকাশিত সংবাদে কোন অভিযোগ থাকলে অামাদের জানাতে পারেন।


© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়
[X]