শুক্রবার, ২২ Jun ২০১৮, ০৯:৪৪ পূর্বাহ্ন

ঝিনাইদহে প্রশাসন ও এলাকাবাসীর চোখ এড়িয়ে বাড়ির প্রাচীরে নৌকা প্রতীক লাগিয়ে মাদক ব্যবসার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর ঝাড়ু মিছিল !।

ঝিনাইদহে প্রশাসন ও এলাকাবাসীর চোখ এড়িয়ে বাড়ির প্রাচীরে নৌকা প্রতীক লাগিয়ে মাদক ব্যবসার প্রতিবাদে এলাকাবাসীর ঝাড়ু মিছিল !।

স্টাফ রিপোর্টার,সময় ঝিনাইদহঃ
ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌরসভার নিশ্চিন্তপুরে বাড়ির প্রাচীরে নৌকা প্রতীক লাগিয়ে মাদক ব্যবসার প্রতিবাদে ঝাড়ু মিছিল করেছেন এলাকাবাসী। এসময় বাড়িটিতে ইটপাটকেল ছুঁড়ে মারেন বিক্ষুব্ধরা। ঝাড়ু হাতে শত শত নারী ঘিরে রাখেন বাড়িটি। বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে নিশ্চিন্তপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশের পক্ষ থেকে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্হা নেওয়ার আশ্বাস দিলে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী ফিরে যান। বাড়িটির মালিক অমিত শিকদার বিশু কালীগঞ্জ শহরের নিশ্চিতপুর গ্রামের মৃত নন্দ শিকদারের ছেলে এবং এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। স¤প্রতি যশোর কোতয়ালী থানা পুলিশ তাকে বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ আটক করে। জানা গেছে, নিশ্চিন্তপুর গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা করেন অমিত শিকদার বিশু। প্রশাসন ও এলাকাবাসীর চোখ এড়িয়ে এ ব্যবসা চালাতেন তিনি। ব্যবসা ভালোভাবে চালিয়ে যেতে বাড়ির প্রাচীরে বর্তমান সরকারের দলীয় প্রতীক নৌকা ব্যবহার করতেন তিনি। এলাকাবাসী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমাদের এই গ্রামে বিশু ছাড়া আর কেউ এই মাদক ব্যবসা করে না। এলাকার যুব সমাজ সে ধ্বংস করে দিচ্ছে। এই এলাকা থেকে মাদক উচ্ছেদ করার জন্য আমরা রাস্তায় নেমেছি। শত শত পরিবার ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে মাদকের কারণে। মিতা বিশ্বাস নামের এক নারী বলেন, বিশু দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা করছে। তাদের পুরো পরিবার এই মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। আমরা চাই না যে এই এলাকায় কেউ মাদক ব্যবসা করুক। কালীগঞ্জ পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আশরাফুল আলম বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে সর্বদা সোচ্চার আছি। এলাকায় কেউ মাদক ব্যবসা করে পার পাবে না। এলাকাবাসীর বিক্ষোভের কথা শুনেছি।

প্রশাসনের সাথে কথা বলে ব্যবস্হা নেওয়া হবে। তবে মাদক ব্যবসার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অমিত শিকদার বিশুর মা ইতি বিশ্বাস। তার দাবি, এটা তার ছেলের বিরুদ্ধে চক্রান্ত। যারা বিক্ষোভ করছে তারা কেউ এই এলাকার না। কালীগঞ্জ থানার এসআই সমদীপ কুমার বলেন, এলাকাবাসী যে অভিযোগ করেছে সেটা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে আইনগত ব্যবস্হা নেওয়া হবে।

 

সংবাদটি ফেজবুকে সেয়ার করুন

অামাদের সংবাদ সংক্রান্ত তর্থ্য

সকল প্রকাশিত/সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট ইত্যদি অনলাইনের নানা সূত্র থেকে সংগৃহীত। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ীনয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের এবং প্রকাশিত সূত্রের। অামাদের প্রকাশিত সংবাদে কোন অভিযোগ থাকলে অামাদের জানাতে পারেন।


© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়
[X]