সোমবার, ২৩ Jul ২০১৮, ০৫:৪৯ অপরাহ্ন

প্রধানমন্ত্রীকে এমএমএস করে কপাল খুললো অটো চালকের….

প্রধানমন্ত্রীকে এমএমএস করে কপাল খুললো অটো চালকের….

প্রধানমন্ত্রীকে নিজের সমস্যার কথা এসএমএস করে জানিয়ে প্রতিকার পেলেন ময়মনসিংহের এক অটো রিক্সা চালক। জেলার তারাকান্দা উপজেলার আব্দুস সামাদ নামে সেই অটো চালক এখন এলাকায় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছেন। নিজের অটো রিক্সা হারিয়ে কোন কুলকিনারা না পেয়ে ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করেন প্রধানমন্ত্রীর মোবাইল নম্বর, সাহায্য চেয়ে পাঠান এসএমএস। আর এতেই কপাল খুলে এই অটোরিক্সা চালকের।

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার অটো রিক্সা চালক আবদুস সামাদ। গত ২৮ মে তার অটো রিক্সাটি গেরেজ থেকে হারিয়ে যায়। সংসার চালানোর এক মাত্র অবলম্বন অটোরিক্সাটি হারিয়ে পথে বসে যাওয়ার উপক্রম হয় তার। উপয় অন্তর না দেখে ইন্টারনেট থেকে প্রধানমন্ত্রীর মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করেন তিনি।

এরপর ‘মা তুমি সারা দেশের মা। আমাকে একটু সাহায্য করুন।’ এই কথা লিখে গত সোমবার ঐ নম্বরে একটি এসএমএস পাঠান।

আবদুস সামাদ জানান, ধার দেনা করে এক লাখ ষাট হাজার টাকা দিয়ে একটি অটোরিক্সা কিনেছিলেন। এর আয় থেকেই স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে চলে তার সংসার। স্কুলে যায় তার দুই সন্তান। কোন উপায় না দেখে নিজের মোবাইলে এমপি মন্ত্রীর নাম লিখে গুগল সার্চ করেন তিনি। দেখতে পান প্রধানমন্ত্রীর নম্বর লেখা একটি নম্বর। পাঠিয়ে দেনে এসএমএস। তবে এই এসএমএস প্রধানমন্ত্রীর নজরে আসবে ভাবেননি তিনি।

গতকাল বুধবার বাড়িতে পুলিশ হাজির। তারা জানতে চায় কোন এসএমএস পাঠিয়েছি নাকি। প্রথমে ভয় পেয়ে যাই। পরে বুঝতে পারি আমাকে সাহায্য করার জন্য পুলিশ এসেছে। বৃহষ্পতিবার পুলিশ সুপার তার অফিসে ডেকে নিয়ে আমার হাতে একটি অটো রিক্সা তুলে দেন। আমি কল্পনাই করতে পারছিনা এসব। সবই স্বপ্ন মনে হচ্ছে।

ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার জানান এসএমএসটি নজরে আসে প্রধানমন্ত্রীর। সাহায্যের নির্দেশনা পাঠান। আমরা আবদুস সামাদকে খুঁজে বের করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছি।

সংবাদটি ফেজবুকে সেয়ার করুন

অামাদের সংবাদ সংক্রান্ত তর্থ্য

সকল প্রকাশিত/সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট ইত্যদি অনলাইনের নানা সূত্র থেকে সংগৃহীত। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ীনয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের এবং প্রকাশিত সূত্রের। অামাদের প্রকাশিত সংবাদে কোন অভিযোগ থাকলে অামাদের জানাতে পারেন।


© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়