মঙ্গলবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ০২:০৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
কলাপাড়ায় যাত্রীবাহী বাস পুকুরে পড়ে আহত ১৩…. হাদিসের গল্পঃ পাহাড়ের গুহায় আঁটকে পড়া তিন যুবক…. ফেনীতে সংখ্যালঘুরা হামলা বা নির্যাতনের স্বীকার হলে,নির্যাতন কারীদের জায়গা ফেনীর মাটিতে হবেনা-নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি…. ফেনী র‍্যাব-৭ এর একিদিন চালানো দুটি অভিযানে অস্ত্র গুলি ও মাদক উদ্ধার সহ আটক-৩…. কালীগঞ্জে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল ও পিকআপ ভ্যানসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক…. ঝিনাইদহে পুলিশের বিশেষ অভিযানে ১ জামায়াত কর্মীসহ ৫৮ জন গ্রেফতার…. রংপুর শহরে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত… চট্টগ্রামে বাস-ট্রেন সংঘর্ষে নিহত ২…. ফেনীর দাঘনভূঞাঁয় বিএনপি’র ৪০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর মঞ্চ ভেঙ্গে গুটিয়ে দিয়েছে দূবৃর্ত্তরা… ফেনীর ছাগলনাইয়ায় মহামায়া ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধরের অভিযোগে ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ….
এটিএম-এ সাবধান! সামান্য ভুলে কী ভাবে ঠকলেন অসহায় বৃদ্ধ

এটিএম-এ সাবধান! সামান্য ভুলে কী ভাবে ঠকলেন অসহায় বৃদ্ধ

ওই বৃদ্ধ ভাবতেও পারেননি কত বড় প্রতারকের পাল্লায় পড়েছেন তিনি।অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ননীগোপাল মণ্ডল। এটিএম-এ নিরাপত্তারক্ষী না থাকায় টাকা তুলতে গিয়ে প্রতারিত হলেন অশীতিপর বৃদ্ধ। ব্যাঙ্ক কর্মী পরিচয় দিয়ে বৃদ্ধের এটিএম দিয়ে ৮৬ হাজার টাকা তুলে নিল প্রতারক।
মহিষাদল থানার অন্তর্গত লক্ষ্যা গ্রামের বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক ননীগোপাল মণ্ডল গত ৪ জুন মহিষাদলে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ার এটিএম-এ পেনশনের টাকা তুলতে যান। ননীগোপালবাবু জানান, সকাল সাড়ে আটটা নাগাদ তিনি এটিএম-এ যান। বয়সজনিত কারণে দৃষ্টিশক্তি ভাল নয় তাঁর। তাই প্রতি বারই তিনি নিরাপত্তারক্ষীর মাধ্যমে টাকা তোলেন। সেদিনও তিনি টাকা তুলতে যান। এটিএমের মধ্যে দাঁড়িয়ে থাকা একটি লোক জানায়, সে ব্যাঙ্কের কর্মী। ননীগোপালবাবু তাঁর এটিএম কার্ডটি তাকে দেন। ওই ব্যক্তি দু’বার চেষ্টা করার পরে ননীগোপালবাবুকে এটিএম কার্ড ফিরিয়ে দিয়ে বলে, টাকা তোলা যাচ্ছে না। তিনি বরং ব্যাঙ্কের ভিতরে গিয়ে কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানান।

এর পরই চমকে যান ননীগোপালবাবু। ব্যাঙ্কে বই আপ টু ডেট করে তিনি দেখেন পাঁচ দফায় ৮৬ হাজার টাকা তোলা হয়েছে। তিনি সঙ্গে সঙ্গে স্টেট ব্যাঙ্কের মহিষাদল শাখার ম্যানেজারের সঙ্গে দেখা করে বিষয়টি জানান। মহিষাদল থানাতেও অভিযোগ দায়ের করেন। ব্যাঙ্ক ম্যানেজার সম্পূর্ণ তথ্য বের করেন জানান, অমল পাল নামে এক ব্যক্তির অ্যাকাউন্টে টাকাটি ট্রান্সফার হয়েছে। তিনি সঙ্গে সঙ্গে ননীগোপালবাবুর অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেন। ওই অমল পাল নামের ব্যক্তি যে এটিএম কার্ডটি তাঁকে দেন, সেটি মোটেই তাঁর এটিএম কার্ড নয়! সেটি জনৈক মিলি দাসের। ওই কার্ড দিয়ে তাঁর কাছ থেকে নিয়ে নেওয়া হয় তাঁর এটিএম কার্ড। সেই কার্ড দিয়েই তোলা হয় টাকা।

ব্যাঙ্ক থেকে পাওয়া সম্পূর্ণ তথ্য তিনি মহিষাদল থানায় জমা দেন। ব্যাঙ্কগুলি প্রতিনিয়ত সচেতন করছে গ্রাহকদের, তবুও প্রায়ই নানা ভাবে প্রতারিত হতে হচ্ছে গ্রাহকদের।

সূত্রঃএবেলা


সংবাদটি ফেজবুকে সেয়ার করুন


© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়
Translate »