মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ০৬:৫২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
কলাপাড়ায় যাত্রীবাহী বাস পুকুরে পড়ে আহত ১৩…. হাদিসের গল্পঃ পাহাড়ের গুহায় আঁটকে পড়া তিন যুবক…. ফেনীতে সংখ্যালঘুরা হামলা বা নির্যাতনের স্বীকার হলে,নির্যাতন কারীদের জায়গা ফেনীর মাটিতে হবেনা-নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি…. ফেনী র‍্যাব-৭ এর একিদিন চালানো দুটি অভিযানে অস্ত্র গুলি ও মাদক উদ্ধার সহ আটক-৩…. কালীগঞ্জে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল ও পিকআপ ভ্যানসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক…. ঝিনাইদহে পুলিশের বিশেষ অভিযানে ১ জামায়াত কর্মীসহ ৫৮ জন গ্রেফতার…. রংপুর শহরে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত… চট্টগ্রামে বাস-ট্রেন সংঘর্ষে নিহত ২…. ফেনীর দাঘনভূঞাঁয় বিএনপি’র ৪০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর মঞ্চ ভেঙ্গে গুটিয়ে দিয়েছে দূবৃর্ত্তরা… ফেনীর ছাগলনাইয়ায় মহামায়া ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধরের অভিযোগে ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ….
২০০ রোগীর জীবন বাঁচাল জোঁক!

২০০ রোগীর জীবন বাঁচাল জোঁক!

চিকিৎসাবিজ্ঞানে জোঁকের বিপ্লব ঘটিয়েছেন ভারতের চিকিৎসকরা। ডায়াবেটিক, আলসারসহ মারাত্মক সব রোগের চিকিৎসায় ব্যবহার করা হচ্ছে জোঁক। এতে সফলতাও পেয়েছে দেশটির চিকিৎসকরা। তাদের দাবি, অন্তত ২০০ রোগীর জীবন বাচানো সম্ভব হয়েছে জোঁক দিয়ে চিকিৎসা করে।

গুরুতর অসুস্থ ছিলেন কলকাতার ওষুধ কোম্পানির মালিক এক নারী। পায়ের আলসার কিছুতেই সারছিল না। এরপর তিনি শরনাপ্ন্ন হন ডাক্তার বিধানচন্দ্র রায়ের। কলকাতার একটি হাসপাতালের চিকিৎসক ক্ষতস্থানে জোঁক বসিয়ে চিকিৎসা করেন। মাসখানেকের মাথায় পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেন তিনি।

পেরেক ঢুকে পচন ধরেছিল পায়ে। একটি অংশ অপারেশ করে বাদ দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। কিন্তু, রোগীর আবার ‘ডায়াবেটিক’। পায়ে গ্যাংগ্রিনের জায়গায় জোঁক বসিয়ে দেওয়া হয়েছিল। অপারেশন ছাড়াই দিব্যি সুস্থ হয়ে ওঠেন ওই রোগী। এমন উদাহরণ ভুরি ভুরি। বস্তুত, শুধু আলসার বা গ্র্যাংগিনই নয়, সাদাস্রাব, সোরিয়াসিসি, ফাইলেরিয়ার মতো রোগও সারছে ‘লিচ থেরাপি’ বা জোঁক-চিকিৎসায়।

কিন্তু কিভাবে সম্ভব। কি আছে জোঁকে। বিষয়টি খোলাসা করেছেন, কলকাতার জেবি হাসপাতালে পঞ্চকর্ম বিভাগের প্রধান পুলককান্তি। তিনি বলেন, শরীরের পচনশীল অংশের দূষিত রক্ত দ্রুত শুষে নিয়ে নতুন রক্তা সঞ্চালনে সাহায্য করে জোঁক৷ এমনকী, রক্তে শর্করার মাত্রাও নিয়ন্ত্রণে রাখে। জোঁকের শরীর থেকে ডেস্টাবিলেস নামে এক ধরণের প্রোটিন প্রবেশ করে মানুষের দেহে। যা বহু জেদি জীবাণুকে মেরে ফেলে।

তিনি জানান, জোঁকের শরীরে থাকা নিউরোসিগন্যালিং এবং অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল পেপটাইড যে কোনও ধরনের সংক্রমণ কমাতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। জয়েন্ট পেনেও দারুণ কাজ করে জোঁক থেরাপি। ব্যথার জায়গায় কিছুক্ষণ জোঁক রাখলে রক্ত সরবরাহের উন্নতি হয়। ফলে অস্টিওপোরোসিসের মতো রোগের প্রকোপ কমে যায়

আরেক চিকিৎসক প্রদ্যুতবিকাশ কর মহাপাত্র জানান, এক একটি জোঁক ২ থেকে ১৫ মিলিলিটার রক্ত শুষতে পারে। সেই সঙ্গে মুখ থেকে এক ধরনের লালা মিশিয়ে দেয় রক্তে। যাতে হিরুডিন, ক্যালিক্রেইন, ক্যালিনের মতো কিছু উৎসেচক থাকে। যা রক্তের দুষ্টি দূর করতে সাহায্য করে।

সূত্রঃইন্টারনেট


সংবাদটি ফেজবুকে সেয়ার করুন


© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়
Translate »