বৃহস্পতিবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ১২:২৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
কলাপাড়ায় যাত্রীবাহী বাস পুকুরে পড়ে আহত ১৩…. হাদিসের গল্পঃ পাহাড়ের গুহায় আঁটকে পড়া তিন যুবক…. ফেনীতে সংখ্যালঘুরা হামলা বা নির্যাতনের স্বীকার হলে,নির্যাতন কারীদের জায়গা ফেনীর মাটিতে হবেনা-নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি…. ফেনী র‍্যাব-৭ এর একিদিন চালানো দুটি অভিযানে অস্ত্র গুলি ও মাদক উদ্ধার সহ আটক-৩…. কালীগঞ্জে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল ও পিকআপ ভ্যানসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক…. ঝিনাইদহে পুলিশের বিশেষ অভিযানে ১ জামায়াত কর্মীসহ ৫৮ জন গ্রেফতার…. রংপুর শহরে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত… চট্টগ্রামে বাস-ট্রেন সংঘর্ষে নিহত ২…. ফেনীর দাঘনভূঞাঁয় বিএনপি’র ৪০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর মঞ্চ ভেঙ্গে গুটিয়ে দিয়েছে দূবৃর্ত্তরা… ফেনীর ছাগলনাইয়ায় মহামায়া ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধরের অভিযোগে ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ….
পুলিশের মারধরে রক্তাক্ত ব্যাংক কর্মকর্তা

পুলিশের মারধরে রক্তাক্ত ব্যাংক কর্মকর্তা

টঙ্গীতে সোনালী ব্যাংকের এক কর্মকর্তাকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছেন দুই পুলিশ সদস্য। এ ঘটনায় এক সার্জেন্ট ও এক কনস্টেবলকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। রোববার সকালে গাজীপুরের টঙ্গীর সাতাইশ এলাকায় মারধরের ঘটনাটি ঘটে।
মারধরে আহত ব্যাংক কর্মকর্তার নাম মো. আমির হোসেন (৪৫)। তিনি টঙ্গীর সাতাইশ ব্যাংকপাড়া এলাকার বাসিন্দা। আমির হোসেন সোনালী ব্যাংকের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় শাখারয় কর্মরত।

ভুক্তভোগী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আমির হোসেন সকাল নয়টার দিকে কর্মস্থলের উদ্দেশে রওনা দেন। রিকশা নিয়ে সাতাইশ রোডের মাথায় পৌঁছালে সেখানে কর্তব্যরত সার্জেন্ট মো. ফিরোজ ও কনস্টেবল শ্যামল দত্ত তার পথরোধ করেন। রিকশা আর যেতে দেয়া হবে না জানালে চালকের সঙ্গে পুলিশের দুই সদস্যের বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। এ সময় যাত্রী আমির হোসেন পুলিশ সদস্যদের বলেন, তিনি ভাড়া দিয়ে চলে যাচ্ছেন। তারা পরে রিকশাটিকে সরিয়ে দিক। এ কথা বলার সঙ্গে সঙ্গে আমির হোসেনকে গালিগালাজ করতে থাকেন সার্জেন্ট ফিরোজ ও কনস্টেবল শ্যামল। তারা উত্তেজিত হয়ে আমির হোসেনকে বেদম প্রহার করেন। আশপাশের লোকজন ছুটে এসে ঘটনার প্রতিবাদ জানান। তারা দুই পুলিশ সদস্যকে অবরুদ্ধ করেন।

খবর পেয়ে টঙ্গী থানার পুলিশ ও ট্রাফিক পুলিশের অন্য সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে ওই দুই পুলিশ সদস্যকে উদ্ধার করেন। একই সঙ্গে আহত ব্যাংক কর্মকর্তাকে উদ্ধার করে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন।

ভুক্তভোগী ব্যাংক কর্মকর্তা জানান, হঠাৎ করে দুই পুলিশ সদস্য উত্তেজিত হয়ে তাকে এলোপাতাড়ি মারধর করেন। মারধরে তার হাতের নখ ফেটে রক্ত বের হয়েছে। জামাকাপড় ছিঁড়ে গেছে।

গাজীপুর ট্রাফিক বিভাগের পরিদর্শক মো. সোহরাব হোসেন জানান, সার্জেন্ট ফিরোজ ও কনস্টেবল শ্যামল অসদাচরণ করেছেন। তাদের শাস্তি পেতে হবে।

এই ঘটনার পর সার্জেন্ট ফিরোজ ও কনস্টেবল শ্যামলকে তাৎক্ষণিকভাবে প্রত্যাহার করে গাজীপুর পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন গাজীপুর ট্রাফিক বিভাগের সহকারী পুলিশ সুপার মো. সালেহ উদ্দিন আহমেদ।

সূত্র: বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম


সংবাদটি ফেজবুকে সেয়ার করুন


© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়
Translate »