সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:২৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
কলাপাড়ায় যাত্রীবাহী বাস পুকুরে পড়ে আহত ১৩…. হাদিসের গল্পঃ পাহাড়ের গুহায় আঁটকে পড়া তিন যুবক…. ফেনীতে সংখ্যালঘুরা হামলা বা নির্যাতনের স্বীকার হলে,নির্যাতন কারীদের জায়গা ফেনীর মাটিতে হবেনা-নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি…. ফেনী র‍্যাব-৭ এর একিদিন চালানো দুটি অভিযানে অস্ত্র গুলি ও মাদক উদ্ধার সহ আটক-৩…. কালীগঞ্জে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল ও পিকআপ ভ্যানসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক…. ঝিনাইদহে পুলিশের বিশেষ অভিযানে ১ জামায়াত কর্মীসহ ৫৮ জন গ্রেফতার…. রংপুর শহরে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত… চট্টগ্রামে বাস-ট্রেন সংঘর্ষে নিহত ২…. ফেনীর দাঘনভূঞাঁয় বিএনপি’র ৪০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর মঞ্চ ভেঙ্গে গুটিয়ে দিয়েছে দূবৃর্ত্তরা… ফেনীর ছাগলনাইয়ায় মহামায়া ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধরের অভিযোগে ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ….
‘হাসপাতালটা দেখে রাখিস’, গাড়ি থামিয়ে বললেন মমতা

‘হাসপাতালটা দেখে রাখিস’, গাড়ি থামিয়ে বললেন মমতা

বৃষ্টি মাথায় নিয়েই হাসপাতালের বাইরে প্রশিক্ষণরত নার্সদের নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন রোগী কল্যাণ সমিতির সভাপতি নির্মল ঘোষ।

পরিষ্কার করা হয়েছিল হাসপাতাল চত্বরের আগাছা। বদলানো হয়েছিল শয্যার চাদরও। সক্কাল সক্কাল হাজিয় হয়েছিলেন চিকিৎসক-নার্স সকলেই।

আইআইটি-র সমাবর্তনে যোগ দিতে বৃহস্পতিবার বিকেলেই জেলায় এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার আইআইটি-র ৬৪তম সমাবর্তনে যোগ দিতে যাওয়ার পথে মুখ্যমন্ত্রী পরিদর্শন করতে পারেন, সেই জন্য প্রস্তুত ছিলেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সকাল পৌনে ১১টা নাগাদ আইআইটি-র সমাবর্তনে যাওয়ার পথে খড়্গপুর মহকুমা হাসপাতালের সামনে দাঁড়াননি তিনি। তবে বেলা সাড়ে ১২টা নাগাদ ফেরার পথে হাসপাতালের গেটের সামনে দাঁড়িয়ে পড়ে মুখ্যমন্ত্রীর কনভয়। গেটের পাশেই নির্মলবাবুর সঙ্গে দাঁড়িয়ে পড়েছিলেন সুপার কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়। গাড়ি থামতেই ছুটে যান নির্মলবাবু।

মুখ্যমন্ত্রী নির্মলবাবুর উদ্দেশ্যে বলেন, “তখন থেকে বৃষ্টিতে ভিজছিস কেন? হাসপাতালটা ভাল করে দেখে রাখিস। ভাল করে কাজ কর।” তার পরেই ডেকে নেন সুপার কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়কে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “হাসপাতালের সবকিছু ঠিকঠাক চলছে তো? কোনও সমস্যা নেই তো?” সুপার হাসিমুখে মাথা নাড়তেই মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “ভাল করে হাসপাতালের জন্য আপনারা কাজ করুন।” এরপরেই রওনা দেন মুখ্যমন্ত্রী।

পরিদর্শনে না গেলেও মুখ্যমন্ত্রী পরামর্শ পেয়ে আপ্লুত হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। মহকুমা হাসপাতালের সুপার কৃষ্ণেন্দুবাবু বলেন, “আইআইটি যাওয়ার পথে মুখ্যমন্ত্রীর হাসপাতালে আসার সম্ভাবনা থাকায় আমরা প্রস্তুত ছিলাম। তবে উনি হাসপাতালে না এলেও কনভয় থামিয়ে হাসপাতালের বিষয়ে খোঁজখবর নেওয়ায় আমরা
খুব খুশি।”

আর রোগী কল্যাণ সমিতির সভাপতি তথা জেলা কর্মাধ্যক্ষ নির্মল ঘোষ বলেন, “হাসপাতালে দিদি আসবেন বলে আশা করেছিলাম। তবে এ ভাবে কনভয় থামিয়ে উনি আমাদের সঙ্গে হাসপাতালের বিষয়ে কথা বলেছেন। এটা বাড়তি পাওনা।”

সূত্রঃ আনন্দবাজার


সংবাদটি ফেজবুকে সেয়ার করুন


© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়
Translate »