বৃহস্পতিবার, ১৬ অগাস্ট ২০১৮, ০৬:১৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর ৪৩ তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে ব্যাতিক্রমধর্মী শোক দিবস পালন করেছে ফেনী জেলা পুলিশ সুপার… রাজশাহীতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস দোকানে, স্কুলছাত্রীসহ প্রাণ গেল ২ জনের.. ঝিনাইদহ লাউদিয়া গ্রামের এক পরিবারের তিন শিশুকে যৌন নিপীড়ন…. ঝিনাইদহ জেলা রিপেটার্স ইউনিটি ও এনপিএস’র জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা শেষে শহর জুড়ে মটরসাইকেল র‌্যালি…. ভাটই বাজারে স্বামী-স্ত্রী পরিচয় দিয়ে বসবাস করা কথিক সাংবাদিক দম্পতি লিটন মিয়া ও আনোয়ারা পারভিন হ্যাপী এবার মহা গ্যাড়াকল…. ফেনী শহরে নিখোঁজের চার ঘণ্টা পর ডোবা থেকে শিশুর মীমের লাশ উদ্ধার… ঢাকায় ইলিশের কেজি মাত্র ৪০০ টাকা! মোবাইল ফোনে নতুন কলচার্জ নিয়ে যা বলছেন গ্রাহক… হরিণাকুন্ডুতে চাঁদাবাজী করতে গিয়ে দুই ভুয়া সাংবাদিক গ্রেফতার…. সিম ছাড়াই কল করা যাবে ফোনে….
loading...
যেভাবে ইসলামি ব্যাংকের ৯ হাজার টাকার চেক হয়ে গেল ৪ লাখ ৯৯ হাজার টাকা

যেভাবে ইসলামি ব্যাংকের ৯ হাজার টাকার চেক হয়ে গেল ৪ লাখ ৯৯ হাজার টাকা

loading...

ঝালকাঠির কিফাইতনগর এলাকার মো. জাহাঙ্গীর হাওলাদারের স্ত্রী শাহীনুর বেগম বড় বোনের ছেলে মো. কবির মোল্লাকে ইসলামী ব্যাংক ঝালকাঠি শাখার নয় হাজার টাকার একটি চেক দেন। কিন্তু ৯ হাজার টাকার ওই চেকের মাধ্যমে তার একাউন্ট থেকে তুলে নেয়া হয়েছে ৪ লাখ ৯৯ হাজার টাকা।

এমন প্রতারণার অভিযোগে ইসলামী ব্যাংকের মোড়লগঞ্জ শাখার দুই কর্মকর্তাসহ চারজনের বিরুদ্ধে ঝালকাঠির আদালতে একটি মামলা হয়েছে। শাহীনুর বেগম বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার ঝালকাঠির সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এ মামলা করেন।

আদালতের বিচারক এইচএম কবীর হোসেন অভিযোগ গ্রহণ করে ঝালকাঠি থানা পুলিশের ওসিকে মামলা তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। বাদীপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট শামীম আলম এবং অ্যাডভোকেট মানিক আচার্য্য।

এ মামলায় আসামী করা হয়েছে ইসলামী ব্যাংক মোড়লগঞ্জ শাখার সেকেন্ড অফিসার মো. আবু সালেহ, জুনিয়র অফিসার মো. খালিদ আজাদ, মোড়লগঞ্জ উপজেলার এক মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মো. আব্দুল বারিক ও বাদীর বড় বোনের ছেলে কবির মোল্লাকে।

মামলা সূত্রে জানাযায়, ওই ৯ হাজার টাকার চেকটি কবির মোল্লা প্রতারণার মাধ্যমে চার লাখ ৯৯ হাজার টাকা বানিয়ে ইসলামী ব্যাংক মোড়লগঞ্জ শাখায় জমা দেন। ওই শাখার কর্মকর্তা আবু সালেহ ও খালিদ আজাদ এবং মাদরাসা অধ্যক্ষ আব্দুল বারিকের সহযোগিতায় চার লাখ ৯৯ হাজার টাকা উঠিয়ে নেন তারা।

এবং নিয়ম অনুয়ায়ী হিসাবধারী শাহীনুর বেগমকে ফোন দিয়ে টাকার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার কথা থাকলেও ব্যাংকের দুই কর্মকর্তা তা করেননি এবং দুই কর্মকর্তা চেকটি সঠিকভাবে পরীক্ষা না করে কবির মোল্লাকে টাকা উঠিয়ে নিতে সহযোগিতা করেন। এই প্রতারণার সঙ্গে তারা সবাই জড়িত মর্মে তাদের সবার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

সূত্র:bd24report

সংবাদটি ফেজবুকে সেয়ার করুন
loading...

অামাদের সংবাদ সংক্রান্ত তর্থ্য

সকল প্রকাশিত/সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট ইত্যদি অনলাইনের নানা সূত্র থেকে সংগৃহীত। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ীনয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের এবং প্রকাশিত সূত্রের। অামাদের প্রকাশিত সংবাদে কোন অভিযোগ থাকলে অামাদের জানাতে পারেন।


© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়