রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৭:১২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনামঃ
কলাপাড়ায় যাত্রীবাহী বাস পুকুরে পড়ে আহত ১৩…. হাদিসের গল্পঃ পাহাড়ের গুহায় আঁটকে পড়া তিন যুবক…. ফেনীতে সংখ্যালঘুরা হামলা বা নির্যাতনের স্বীকার হলে,নির্যাতন কারীদের জায়গা ফেনীর মাটিতে হবেনা-নিজাম উদ্দিন হাজারী এমপি…. ফেনী র‍্যাব-৭ এর একিদিন চালানো দুটি অভিযানে অস্ত্র গুলি ও মাদক উদ্ধার সহ আটক-৩…. কালীগঞ্জে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিল ও পিকআপ ভ্যানসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক…. ঝিনাইদহে পুলিশের বিশেষ অভিযানে ১ জামায়াত কর্মীসহ ৫৮ জন গ্রেফতার…. রংপুর শহরে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে পাঁচজন নিহত… চট্টগ্রামে বাস-ট্রেন সংঘর্ষে নিহত ২…. ফেনীর দাঘনভূঞাঁয় বিএনপি’র ৪০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর মঞ্চ ভেঙ্গে গুটিয়ে দিয়েছে দূবৃর্ত্তরা… ফেনীর ছাগলনাইয়ায় মহামায়া ইউপি চেয়ারম্যানকে মারধরের অভিযোগে ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ….
অনার্স পরীক্ষার্থী রিকশা চালকের ভাগ্য বদলে দিলেন পুলিশ….

অনার্স পরীক্ষার্থী রিকশা চালকের ভাগ্য বদলে দিলেন পুলিশ….

দৈনিক সময় নিউজ ডেস্কঃ
অনার্স পরীক্ষার্থী রিকশা চালকের ভাগ্য বদলে দিলেন পুলিশ। ঠাকুরগাঁও জেলার রাণীশংকৈর থানার চোপড়া এলাকার ছেলে পিপলু রায়। সে ঠাকুরগাঁয়ের ন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্নাসের শেষ বর্ষের ছাত্র। হাড়ভাঙা পরিশ্রম করে পরিবারের খরচ জোগিয়ে রাতে রিকশার গ্যারেজে পড়াশোনা করে তিনি অর্নাস (জিওলজি) পরিক্ষার্থী। পরিবারের সদস্যদের আহার জোগাতে রিকশা চালানোকেই তাই তার পেশা হিসেবে বেছে নিতে হয়েছে তাকে। কিন্তু পড়াশোনায় ছিল তার অগাধ নেশা।
হতদরিদ্র পরিবারের চিহারু ব্রাহ্মণের সন্তান তিনি। জন্মের পর থেকেই অভাব অনটনের মধ্যে তাকে বড় হতে হয়েছে। দারিদ্রতার কারণে তার এক বড় ভাইয়ের মাধ্যমে গত দুই মাসে আগে গ্রামের বাড়ি হতে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে চলে আসেন। সেই বড় ভাই পিপুলকে ব্যাটারী চালিত একটি রিকশা ভাড়ার ব্যবস্থা করে দেন।
দিনভর কষ্ট করে রিকশা চালিয়ে পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে বর্তমানে তার বেশ বেগ পেতে হচ্ছিল। তার জীবনের এ করুন পরিনতি দেখে সাহায্যের হাত বাড়ালেন আবুল কালাম আজাদ নামে এক পুলিশ কর্মকর্তা। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নিজের বেতনের টাকা থেকে পিপুল রায়কে পরীক্ষার খরচ দিয়ে তাকে একটি ফার্নিচার তৈরির প্রতিষ্ঠানে ম্যানেজার হিসাবে চাকুরির ব্যবস্থা করে দিয়েছেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা।
রিকশা চালক থেকে ভালো একটি চাকুরি পাওয়ায় নিজের ভাগ্যের চাকার পরিবর্তন ঘটেছে বলে মনে করছেন পিপলু রায়। জীবনের প্রথমে ভালো চাকুরি পাওয়ায় এ ছাত্র আজ আনন্দিত। পিপুল রায় বলেন, তিনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে জ্যুলজিতে অর্নার্স ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র। এখন তার আর পরীক্ষা দিতে কোনো সমস্যা হবে না। চাকুরির ফাঁকে পড়াশোনাও করতে পারবেন ভালো ভাবেই। সংসারের খরচ জোগাতেও কষ্ট করতে হবে না।
সোনারগাঁ থানার ওই এসআই আবুল কালাম আজাদ জানান, গত ৪ জুলাই রাতে সোনারগাঁ উপজেলার মোগড়াপাড়া চৌরাস্তা খন্দকার প্লাজার সামনে থেকে রিকশাযোগে তিনি তার বাসায় যাওয়ার উদ্দেশে রওনা হন। পরে রিকশা চালক পিপুলকে তার স্ত্রী-সন্তানের কথা জিজ্ঞেস করলে তিনি তাকে চমকে দিয়ে বলেন- স্যার এখনও অনার্স কমপ্লিট করতে পারিনি। সামনে আমার ফাইনাল ইয়ারের পরিক্ষা।
দারিদ্রতার কারণে গ্রামের বাড়ি থেকে সোনারগাঁয়ে এসে রিকশা চালিয়ে লেখাপড়ার খরচ ও পরিবারের সদস্যদের আহারের ব্যবস্থা করছেন। আর রাতে সুযোগ পেলেই রিকশার গ্যারেজের ভেতরে জ্বালিয়ে রাখা বিদ্যুতের বাতির আলোতে লেখপাড়া করেন।
পুলিশ কর্মকর্তা আজাদ আরও জানান, ভাড়ায় চালিত রিকশাটি চুরি হয়ে যাওয়ায় পিপুল রায়কে রিকশা মালিককে ২০ হাজার টাকা কিস্তি করে দিতে হচ্ছে। ইতোমধ্যে তার মাত্র ৬ হাজার টাকা পরিশোধ হয়েছে। অনার্স পরীক্ষার ফরম পূরণের জন্য প্রয়োজন সাড়ে ৬ হাজার টাকা।
পিপুলের কথা শুনে তার দু’চোখ বেয়ে নেমে আসে অশ্রু। পরে তিনি এ প্রতিভাবান পরিশ্রমী ছাত্রের কল্যাণে কিছু একটা করার জন্য সিদ্ধান্ত নেন। পরে স্থানীয় প্রকৌশলী আহম্মেদ আলী তানভীরের সঙ্গে রিক্সা চালক পিপুলের বিষয়ে আলোচনা করে তার প্রতিষ্ঠানে ম্যানেজার হিসাবে চাকুরির ব্যবস্থা করে দেন।
সূত্র: যুগান্তর


সংবাদটি ফেজবুকে সেয়ার করুন


© All rights reserved © ২০১৭-২০১৮ দৈনিক সময়. কম
Design & Developed BY দৈনিক সময়
Translate »